বিশুদ্ধভাবে কুরআন তেলাওয়াত করা প্রত্যেক মুসল্লিদের জন্য অপরিহার্য- অধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি সৈয়্যদ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান আল-কাদেরী

চট্টগ্রাম জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ, মুফতিয়ে আহলে সুন্নাত আল্লামা মুফতি সৈয়্যদ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান আল-কাদেরীর তত্ত্বাবধানে পবিত্র মাহে রমজানে প্রত্যহ বাদে যোহর চট্টগ্রাম মহানগর বায়েজিদ থানাধীন শীতলঝর্ণাস্থ মসজিদে রহমানিয়া গাউসিয়ায় মাসব্যাপী কুরআন তেলাওয়াত প্রশিক্ষণ ও দোয়া-মুনাজাত অনুষ্টিত হয়।

পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষ্যে ১ম রমজানুল মুবারক হতে অদ্য ২৬ রমজান পর্যন্ত নিয়মিত কুরআন তেলাওয়াতের প্রশিক্ষণ, জরুরী মাসআলা-মাসায়েল ও দোয়া ইত্যাদি যত্নসহকারে মুসল্লিদের কে শিক্ষা দেয়া হয়েছে।

অদ্য ২৬ শে রমজান বৃহস্পতিবার যোহরের নামাজের পর কেরাত, মাসআলা-মাসালেয় প্রশিক্ষণ ও দোয়া মাহফিলে চট্টগ্রাম জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ, মুফতিয়ে আহলে সুন্নাত আল্লামা মুফতি সৈয়্যদ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান আল-কাদেরী বলেন- নামাজের মধ্যে কুরআনে পাক বিশুদ্ধভাবে তেলাওয়াত করা প্রত্যেক মুসল্লি (নর-নারীর) ওপর অপরিহার্য। নামাজে কেরাত শুদ্ধ না হলে এবং কুরআনে পাকের শব্দ ও অক্ষরসমূহের উচ্চারণ বিশুদ্ধভাবে আদায় না হলে নামাজ শুদ্ধ হবে না। তাই প্রত্যেক মুসলিম ছেলে-মেয়ে এবং প্রতিটি মসজিদের মুসল্লিদের কে কুরআনে পাকের সহীহ শুদ্ধভাবে প্রশিক্ষণ দেয়া একান্ত জরুরী। এবিষয়ে সকল অভিভাবক এবং দেশের সকল মসজিদের ইমাম ও খতিব সাহেবান কে এগিয়ে আসার এবং প্রত্যেক মুসল্লী নর-নারীকে সহীহ শুদ্ধভাবে কুরআনে পাক তেলাওয়াত করার আহবান জানানো হয়।

পবিত্র হাদিসে পাকে বর্ণিত আছে- রাসূলে আকরম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন- অনেক কুরআন তেলাওয়াতকারীকে (সহীহ শুদ্ধভাবে আন্তরিকতার সহিত তেলাওয়াত না করার দরুন) পবিত্র কুরআন অভিশাপ দেয়।(আল-হাদিস)

এতে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদরাসার সিনিয়র মুদাররিস ও অক্সিজেন কেন্দ্রিয় জামে মসজিদের খতিব হাফেজ মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মদ আজিজুর রহমান আলকাদেরী, আযহারী সাইবার টীম বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ও মিশর আল আযহার বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মদ হাসান আযহারী , মসজিদে রহমানিয়া গাউসিয়ার খতিব মাওলানা মুহাম্মদ বোরহান উদ্দিন ,পেশ ইমাম মাওলানা সাইফুল হক কাদেরী, হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ রায়হান কাদেরী, মাওলানা ইমরান কাদেরী, হাফেজ ইকবাল হোসাইন রবি, সৈয়দ মুহাম্মদ খলিলুর রহমান প্রমুখ।

পরিশেষে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশসহ বিশ্বের সমগ্র মুসলমানদের কল্যাণ ও মুক্তি কামনা করে দোয়া-মুনাজাত পরিচালনা করেন অধ্যক্ষ আল্লামা মুফতি সৈয়্যদ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান আল-কাদেরী (মু,জি,আ)।

About Bangla Gov Jobs

Check Also

পবিত্র মাহে রমজান মাস ১৪৪৩ এর সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২২

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২২: পবিত্র রমযান হল ইসলামিক বর্ষপঞ্জিকা অনুসারে নবম মাস। এটি সংযমের মাস। এই মাসে বিশ্বব্যাপী মুসলিমগণ সাওম পালন করে থাকেন। রমজান মাসে সাওম বা রোজা পালন ইসলামের পাঁচটি স্তম্ভের মধ্যে তৃতীয়তম। রমজান মাসের শেষদিকে শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলে শাওয়াল মাসের ১ তারিখে মুসলমানগণ ঈদুল-ফিতর পালন করে থাকেন। আমরা প্রতি বছর …

Leave a Reply

Your email address will not be published.